পাঠক যখন লেখক – ০৯.০৮.২০২০

সম্পাদক, দক্ষিণের জানালা on

pathok-lekhok-banner

দিশা সরকার -এর দু’টি কবিতা

অনন্তের

রাত্রি দিন,কালচে নীল মিশেছে আলো ছায়ায়।
উজ্জ্বল তারা,নিদ্রা হারা মহাকাশ মহাকায়ায়।
রুদ্র তপন,জ্বলে আনমন দীর্ঘ উচ্ছ্বাসে।
চন্দ্রমা দেয়,জোৎস্না আলোয় শীতলতা নিশ্বাসে।
মেঘ-মেদুর,সন্ধ্যা-ভোর ভাঙে গড়ে যেখানে,
অনন্তের এই মহাচক্র শেষ নাহি হতে জানে।।

ত্রিকোণ

আমি যেথায় চলেছি সে চলে অন্যখানে
চঞ্চল,সে উদভ্রান্ত নিদ্রা নাহি জানে
আপস করে পোষায় না তার চাহিদা অনেক কিছু
চিরকালের অসম্ভবের নিয়েছে সে পিছু
সন্ধি শুধু নিজের সাথে,আরি জগৎ হতে
থাকনে না সে সবার মাঝে চলবে উল্টো স্রোতে।
আমার মনের এ বৰ্ণনা কমই বোধ হয় পরে
আবছা আবছা সংকল্পে একটি ত্রিকোণ গড়ে।
এক কোণতে দাঁড়াই আমি ,এক কোণতে সে,
অন্য কোনে বাকি সবটা পৃথিবী রয়েছে।


শুধু রয়েছি আমি আমার পাশে

পিয়ালী বসাক

জীবনে চলার পথে-
যখন এসে দাঁড়ালাম সাথে,
ভেবেছিলাম চলবো এক হয়ে-
সুদুর গ্রাম থেকে শহরের রাজপথে।
চেয়েছিলাম শুরু করবো জীবন…..
এক হয়ে এক সাথে।
মাঝপথে এসে থমকে দেখি আশে-পাশে–
নেই তো কেউ
শুধু রয়েছি আমিই আমার পাশে।।



0 Comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।