তরঙ্গ

রোহিত গুহ on

torongo

পরাবাস্তবী সত্তার দর্পণে অভিমানী অস্তরাগ,
অজ্ঞাতনামার বৃষ্টিতে ধোঁয়াশার বর্ষাতি গায়ে-
আবার একটা যুগ পেরিয়ে যাচ্ছি আমরা,
পাললিক শিলার ভাঁজে ভাঁজে চুঁইয়ে পড়ছে-
যাযাবরের দেশ কিয়দংশ।
ছত্রাকের সুতো আগলে রেখেছে নগ্ন কপাটের পাঁজর,
মেঘ-পিয়নের পাড়ায় পাড়ায় ভাড়াটিয়া কত-
বেনামী খাম।হৃদয় হেথা শিসমহল…
চারণ কবির দল মাটির বেহালা বুকে-
নিঃশব্দে পেরিয়ে যায় মায়া-মারীচের রজনী।
জ্যোৎস্নার অলিন্দে ফিরে আসছে বিবাগী কবিতারা-
পরিযায়ীদের পিঠে চড়ে।
বাহারী গোলাপের গালিচা উজাড় করে দিল-
লোভাতুর বুভুক্ষু জাতির পদলেহন প্রবণতা,
ভাঙা জানালার আনাচে কানাচে কত পতঙ্গের লাশ!
আতস কাঁচের পুনর্জন্মে অন্ধ হয়েছে বিদগ্ধ সভ্যতা,
রক্তশূন্য বালুকাবেলায় দাগ রেখে গেছে-
দুর্ধর্ষ কত নাবিকের ভাঙা মাস্তুল,
আমার এপিটাফে বুনো অর্কিডের পাহারা থাকুক
নিষিদ্ধ হোক চোখের জল,নিষিদ্ধ হোক সালতামামি।



রোহিত গুহ

বর্তমানে কলেজে পাঠরত, বি.এ. জেনারেল(সেকেন্ড ইয়ার) হুগলী মহসিন কলেজ। ২০১৮ থেকে বিভিন্ন লিটল ম্যাগাজিনে লেখালিখি করছেন। সম্প্রতি বাংলাদেশের একটি লিটল ম্যাগাজিনে কবিতা প্রকাশিত হয়েছে।

0 Comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।