তারপর লাল রঙ দারুণ চিৎকারে
ঘুম ভেঙে দেখি অল্প অল্প দুলছো
আর নদী-অন্ধকারে শাদা হচ্ছে
উড়ন্ত চাঁদের কুঠার
ছাইরঙ এত নীল গর্জন তার,
তুমি মেঘলা হতে হতে হেসে উঠলে
চকিত বিদ্যুতের আগুন গাছ
ঝাউবন খুলে ছুটে যাই বিকেলসমেত
ধুধু জানলা ফুঁড়ে ওড়াই ঘন কমলা ঘুড়ি
উড়তে উড়তে মুহুর্তের বাগানে
ভোকাট্টা! পারে না..ইসস
দুয়ো দেয় হাওয়া-মেঘ-জলের দেওয়াল
ছেঁড়া ছেঁড়া পালকের রঙ
গিঁথে যায় অবৈধ স্বপ্নর ভেতর।



মণিদীপা বিশ্বাস কীর্তনিয়া

উত্তর চব্বিশ পরগনার বসিরহাটে জন্ম। ন‍্যাশনাল মেডিকেল কলেজ থেকে এম.বি.বি.এস.ডিগ্রি। বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে কর্মরত। মূলত কবিতা লেখারই আকাঙ্ক্ষা। শখ বই পড়া। প্রকাশিত বই -'জোনাকির বাতিঘর', 'বিষাদ ও অহংকার'এবং 'দূরে বাজে'।

0 Comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।