জীবন পেরিয়ে দু’ পা

অনিন্দ্য পাল on

jibon_periye_dui_pa

আমি একপা বাড়িয়ে দিয়েছি ঈশ্বরের দিকে
অন্য পা রেখেছি জানোয়ারের জিভ থেকে পড়া
বিষাক্ত লালার উপর, বাকিটা বাস্তব জীবন!

স্বর্গীয় ধংসস্তুপের ভিতর থেকে বেঁচে ফিরে আসা
রত্নাকর ছারপোকা চুম্বন দিয়ে যায় আধপোড়া ঠোঁটে
তারপর চুষে নেয় সমস্ত মানবিক রস বর্ণ-গন্ধ ব্যতিরেকে …
শরীর, যতটুকু ছিল পৃথিবীর, হয়ে ওঠে বুভুক্ষু পিপাসু
কুলীন মৃত্যু ভেসে আসে বিয়োগান্ত ঝড়ে
অতঃপর দেহ ছেড়ে হাঁটতে থাকি অ্যানুবিসের হাত ধরে
পিছনে ডাকেনি যদিও কোন একান্ত আপন
তবু চেয়ে দেখি, বেঁচে আছে শুধু আমার
সেই দু’টো পা …


ফেসবুক অ্যাকাউন্ট দিয়ে মন্তব্য করুন


অনিন্দ্য পাল

জন্ম ১৯৭৮ সালে, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার চম্পাহাটিতে। বাবা পরলোকগত বিশ্বনাথ পাল। মাতা অনিতা পাল। শিক্ষা - পদার্থবিদ্যায় সাম্মানিক স্নাতক, বি এড। পেশা - তাড়দহ হাইস্কুলের শিক্ষক। লেখা লেখি শুরু কলেজের দিনগুলোয় যদিও প্রকাশ অনেক পরে। স্থানীয় অনেক লিটল ম্যাগাজিন এ লেখা প্রকাশিত হয়েছে। দেশ, কৃত্তিবাস, নিউজ বাংলা, উৎসব, অপদার্থের আদ্যক্ষর, শ্রমণ , বার্ণিক, অন্বেষা, অর্বাচীন, মুখ প্রভৃতি পত্রিকায় লেখা প্রকাশিত হয়েছে। সাপলুডো নামে একটা পত্রিকার সম্পাদনা করেন। "সুখবর" পত্রিকায় প্রবন্ধ নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। "তোর মত হলে অন্ধকারকেও ভালোবাসি", "জলরঙের ওড়না " ও "সমুদ্রে রেখেছি সময়" ও " আমি এসেছিলাম " নামে চারটি কাব্যগ্রন্থ আছে।

0 Comments

মন্তব্য করুন

Avatar placeholder

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।