দেবসত্য কুমারের একগুচ্ছ কবিতা

দেবসত্য কুমার on

Debsatya_Kumar

ডাক

দুটি মাস থেকে যেতে পারলে ভালো হতো……
পুচুর মাধ্যমিক টা দেখে যেতে পারতাম।
জমির রেজিস্ট্রিটাও এক মাস পরে ……
কিন্তু তাতেও চন্দ্রবিন্দু এসে যাবে।
বুলু মাসি তার মেয়ের বিয়ের জন্য কিছু সাহায্য চেয়ে গেছে…..

অথচ ডাক এসে গেছে….
কিছুই নিয়ে ফেরা যায় না জানি।
তবু কত
অসমাপ্ত কিছু নিয়ে ফিরে যেতে হলো ।

দীর্ঘজীবী হোক

আমাদের লাঙলকে
আপনি কিনতে চাইছেন
কিনতে চাইছেন আমাদের গোলা ভর্তি ধান আর ধানের পালায় বসবাস করা অজস্র পাখির ডিম কে ।
আপনারা সস্তা ভাবে বিক্রি করতে চাইছেন আমাদের সত্তাকে ।
আমরা নীরব ।।
হুজুর, নীরবতা মানে আপস নয় ,
প্রতিবাদ, ধর্না, মানে শক্তি প্রদর্শন নয়।
ভাঙা লাঙলের ফলায় জেগে ওঠা সীতা নই আমরা,
ব্যারিকেড ,আইন ,নিরাপত্তা আপোষের মধ্যে একটা ঝুঁকি থাকে।

তার বাইরে বেরিয়ে আসুন
নয়ত বিপ্লব দীর্ঘজীবী হবে।।

দ্বিধা

উঁচুতে উড়ন্ত বল,
নিচে শুধুমাত্র আমি
আর কেউ নেই।
শুধু আমি।।
আকাশে তাকিয়ে দেখি
বল নয়
ধুলো মাটি আর দ্বিধা ।

মিথ্যে।

ধুয়ে যাক সেইসব সন্তান সন্ততি
যার বীজে মিথ্যে, শুধু মিথ্যে।
যে বীজের পাতায়
মিশে আছে বিষাক্ত ,
তার সন্ততিরা মুছে যাক
ডুবে যাক গভীর অন্ধকারে।


ফেসবুক অ্যাকাউন্ট দিয়ে মন্তব্য করুন


দেবসত্য কুমার

জন্ম 1985 সালে। লেখালিখি শুরু শূণ্য দশকে । বালুরঘাট হাই স্কুলের স্কুল ম্যাগাজিনে প্রথম লেখা প্রিকাশিত হয়। তারপর নিজস্ব 'স্নান' পত্রিকার সম্পাদনা করেন। এরপর 'উত্তর দক্ষিণ' নামক পত্রিকার সঙ্গে যুক্ত হন। একদশক ধরে তার সঙ্গে যুক্ত থাকেন। লেখার হাত ধরে পশ্চিম বঙ্গের বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় লেখা ছাপা হয়। কবি সম্মেলনে , রিমি দে'র 'পদ্য', রায়গঞ্জের 'স্বপ্নের ফেরিওয়ালা' সহ 'উত্তরবঙ্গ', 'আজকাল' ও অন্যান্য পত্র পত্রিকায় লেখা প্রকাশিত হয়। ২০১৯ সালে 'নাটমন্দির' থেকে বের হয় কাব্য গ্রন্থ "ভাত ও জলের আলিঙ্গন"। কবিতা ছাড়াও 'মধ্যবর্তী' পত্রিকায় 'ছড়া' ও 'আত্রেয়ীর পাড়া' তে গল্প প্রকাশিত হয়েছে।

0 Comments

মন্তব্য করুন

Avatar placeholder

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।