হায়না

সমর্পিতা ঘটক on

চেনা পরিচিত জঙ্গলে , চেনা গাছের পুরনো বাকলে কিংবা
অচেনা শিকড়ে আমি হায়নার পায়ের ছাপ দেখেছি।
শুকনো শালপাতার আড়ালে ভেক ধরে ওরা দাঁড়িয়ে থাকে-
যেন ঘন হয়ে দাঁড়িয়ে পর্যবেক্ষণ করাতেই ওদের যাবতীয় সুখ,
সবুজ শালের পাতায় অগোছালো নির্মোহ আলোর উল্টোদিকে
ওরা কী যেন খোঁজে! সালিশি সভায় যেমন করে খোঁজা হয়
মেয়েটির দোষ!
পরে বুঝেছি পরিপূর্ণ শিকারে ওদের রুচি নেই , তাই সদলবলে
খুবলে খুঁড়ে খুঁজে নিতে চায় হৃৎপিন্ড, প্যাংক্রিয়াস, ধমনী…
হায়নার হাসি-কান্না আমি চিনে গেছি তাই আর চমকে উঠি না
পালটা হাসি দিই, অট্টহাসি… উই ঢিপি, বনবাংলোর বারান্দা,
বড় বড় ধনেশ পাখির ডানা, মায় ওয়াচ টাওয়ারটা কেঁপে ওঠে সে হাসির দমকে
যে হায়নাগুলো ওঁত পেতে ছিল তারা ফিরে যায় পাংশু মুখে, আর একদল আসে
মাস কয়েক পর, এ বাহাদুরি খেলা, মাদারি যাপন চলতেই থাকে…



সমর্পিতা ঘটক

নাম- সমর্পিতা ঘটক। জন্ম তারিখ- ৩১শে অক্টোবর, ১৯৭৮। স্থান- কলকাতা। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে স্নাতকোত্তর। বিভিন্ন ছোটো বড়ো পত্র পত্রিকায়, ওয়েবজিনে লেখালেখি। মৌলিক লেখালেখি ছাড়াও অনুবাদের কাজেও কিছু অভিজ্ঞতা রয়েছে। কবিতা, প্রবন্ধ, মুক্ত গদ্য, ভ্রমণ অভিজ্ঞতা ও চলচ্চিত্র বিষয়ে অধিক আগ্রহ।

0 Comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।