সন্ন্যাসিনী

তপন এম চিশতী on


আমার ভিতরেও একটা ঘর আছে
মাঝে মধ্যে এক সন্ন্যাসিনীর আনাগোনা দেখি
তার চোখে গভীর রাত্রি জেগে থাকে,
সে আমায় কোনদিন সন্ন্যাস নিতে বলেনি, বলেনি
সংসারী হতেও… ||


সে ঠিক প্রেমিকানয়, আবার সন্ন্যাসিনীও নয়
তবুও ভালোবাসতে জানে
সে কবলিত গভীর ক্ষত-এ, দ্বিপাক্ষিকতায় নয়।

সে খোঁজে নিজে’রে প্রতিদ্বন্দ্বীভাবে
একপয়সার ঘুম কিনে, নিরুদ্দেশ হয় প্রতিরাতে
তিমির এর ঘুম ভাঙলে সেও ফিরতে চায়
আত্মিকতার বিপক্ষ নিয়ে
হয়ত প্রেমিকা হয়ে, হয়তবা সন্ন্যাসিনীর বেশে ||


তুমি তো হারিয়ে যেতে চাও, মাঝরাতের বিকেলে সন্ন্যাসিনীর বেশে
নিরালায় চাঁদেরকণা আর পাহাড়ি কফিতে চুমুক।

ভালোবাসা পাঠিয়ো কিস্তিতে
ইচ্ছে হলে দুপুরবেলা ভাত ঘুমের ভেতর চিঠি লিখো,
আমি ঘুমিয়ে থাকব ঘুমের মধ্যেই, জমানো কাগজ কলম নিয়ে
আর যদি ঘুম না আসে রেডিয়ো চালিয়ো একবার…..||


ঘুমের মধ্যে খুব কুয়াশা জমেছিল।
দরজা বন্ধ ছিল, বন্ধ ছিল সবকটি জানালাও
মোটামুটি
একটা ঘুলঘুলি ছিল।
হুম, সুযোগ ছিল। যুক্তি ছিল, আলো নিভে গেছিল।

ঠিক দুপুর বেলা এসেছিল, সন্ন্যাসিনী’র বেশে।
ভাত চায়নি,
‘একটুখানি আঁধার হবে’? জিজ্ঞেস করেছিল।
‘আমার তো কেউ নেই, এখন ঘুরতে হবে…’ আমি
বলেছিলাম ঘুমের ঘোরে।



তপন এম চিশতী

জন্ম এবং মূল বাসস্থান মুর্শিদাবাদে, এখন কোলকাতা নিবাসী। শিক্ষাঃ জলপাইগুড়ি গভঃ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ। লেখালিখির পাশাপাশি ফিল্মমেকিং এবং অভিনয়ের সাথে যুক্ত। কবিতা, প্রবন্ধ, উপন্যাস এবং স্ক্রিপ্ট লিখতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। বিভিন্ন ম্যাগাজিন(অনলাইন এবং প্রিন্ট) এবং আনন্দবাজার পত্রিকায় লেখালিখি করেন। প্রথম কাব্যগ্রন্থ: "অনুভুতি", প্রকাশকাল ২০১৫ কোলকাতা বইমেলা।

0 Comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।