মানস চক্রবর্ত্তী’র দুটি কবিতা

মানস চক্রবর্ত্তী on

১॥

আমরা একসঙ্গে যেতেই চেয়েছি
অথবা একসঙ্গে গিয়েছি সত্যিই
কিম্বা একসঙ্গে যাব একদিন

পিলটা বড় করতে চাইছি
একার গোড়ালী কতটা আর পারে
কতটা সক্ষম একা হাত

হাঁটার পা রেখে
বুকের ঘর তছনছ করতে করতে
সূর্য ওঠো সূর্য ওঠো বলে কাকুতি মিনতি

ইদারায় কপিকল বেয়ে
অন্ধকার থেকে জলের উঠে আসা
তোমাকে বলা হয় নি
ঘর ভর্তি কথা চেপে আছে
বলা হচ্ছেনা
সে সব জল ছলছল বৃত্তান্ত

আমরা কথা বলিইনি একটাও
তবু তুমি হেঁটে গেলে আমার পা এ
সে মিছিলে কী করে যে আমিও

কথা না বলেই
যেতে হবে এটুকু চোখের দাবী

কমরেড হয়ে উঠলে
কমরেড গো জীবনসাথী

২॥

সেই তো এলে
মুখ কালো করে…
সময় আটকে গেলো সন্ধের ঘেরাটোপে

এই তো এলে
যাই যাই করে
আমাকে আটকে রেখে চলে গেলে

শূন্য আসন…শূন্য গানের খাতা
সুর শূন্য… শূন্য গাছের পাতা
তবু আকাশে হানে বিজলী বিদ্যুৎ ঘনঘন
এলে যদি তপ্ত সন্ধ্যায়
ওহে কালবৈশাখী চলে গেলে কেন ?



মানস চক্রবর্ত্তী

জন্ম: জয়নগর মজিলপুর । ১ নভেম্বর ,১৯৬১ । বাসস্থানঃ রবীন্দ্র নগর / বারুইপুর পেশা- অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার , সিইএসসি । বই - সাম্প্রতিক দুজন , বিবিধ পংক্তি , ( কবিতা ) ; ছিপ নৌকোয় গলুই থাকে না ( গল্প) । পুরস্কার - যুব উৎসবে । লোকসখা সোসাইটি থেকে জেলার সেরা গল্পকার । পত্রিকা - ভোর ( অণুগল্পের কাগজ ) সম্পাদনা । নানান কাগজে লিখেছেন । কবিতা বেশী । গল্পও ।মুক্ত গদ্য , রম্য রচনা । কিন্তু অর্ডারি লেখা অপছন্দ । লেখালেখির বাইরে সমাজ কর্মী ।

0 Comments

মন্তব্য করুন

Avatar placeholder

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।