ভাঁড় বদলের গল্প

ঈশিতা মাঝি on

এক ভাঁড় চায়ের সাথে কী কী করেন?
রাজনৈতিক তরজা, কলকাতার কড়চা , প্রেমের কাঁদুনি আর…

আমি আজ একটা অন্য গল্প বলি ,
আমি তখন সদ্য শহরে আসা কলেজ পড়ুয়া।
গায়ে মেঠো গন্ধ সাজপোশাকেও বেশখানিকটা গাঁইয়া তখনও।
নেশার পানীয় বলতে ছিল শুধু চা আর ধূম।
দিন মনে নেই, তবে চায়ের ঠেকেই …
হঠাৎই আলাপ হয় এক শহুরে প্রগলভতার সাথে
আলাপ জমে খুব সহজেই।
তুফান তোলা তর্ক আর আড্ডা -কবিতা-গানে
ফুরতে থাকে চা ভাঁড়ের পর ভাঁড়।

এভাবেই কখন একপশলা প্রেমের শ্রাবণ,
ভিজিয়ে গেল আমার কলেজ জীবন।
শুরু হলো একতরফা একলা প্রেমে তার পাশাপাশি হাঁটা।
চায়ের ভাঁড়ে তখনও আড্ডা জমে রোজ।
তবুও তাকে বলা হয়নি,
“ভালোবাসি তোকে, তুইও কি বাসিস?
রাখিস নিজের মনের খোঁজ?”

এভাবেই কাটছিল দিন আর ফুরিয়ে আসছিল
আমার এশহরে থাকার মেয়াদ।

ঠিক ফিরে যাওয়ার আগের দিন সন্ধেতে
মেঘ বিদ্যুতের কোলাজে,
দেখা হল আমাদের
একপ্রস্ত কাকের মতন ভিজে।

বলিনি সেদিনও তাকে,“ভালোবাসি”।
শুধু তাকে কথার জালে ভুলিয়ে,
তাঁর সাথে চায়ের ভাঁড় বদলে নিয়েছিলাম।
সেই ভাঁড়েই ঠোঁট ডুবিয়ে চুমুক দিয়ে,
তাকে বারকতক চুমু খেয়েছিলাম।

এই একতরফা প্রেমের গল্প এখানেই শেষ হতে পারত,
শেষদিন যদি “ভালো থাকিস” সহজে বলা যেত।
***


ঈশিতা মাঝি

নাম - ঈশিতা মাঝি, বাড়ি - আন্দুল, হাওড়া। কবিতাযাপনে আত্মিক আনন্দ পান বলেই লেখেন। প্রথম কাব্যগ্রন্থ - “ডেলি প্যাসেঞ্জারের অন্য জানলা” (২০১৯)।

1 Comment

N Islam · জুলাই 10, 2019 at 9:21 অপরাহ্ন

মন ছুঁয়ে গেলো !?

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।