দুঃস্বপ্নের মধ্যে দিয়ে

অনির্বাণ চন্দ on

Stones pelted by an anonymous
May-be poet
Sliced the silence of the night.

আমি?
একটা লেখাকে খুব খুঁজছি
ক’দিন ধরেই
অক্সিজেন সিলিন্ডার ঘাড়ে করে
ভয়ে-ভয়ে এপাশ-ওপাশ করছি সারারাত
খটখটে মাঝদুপুরে ভাবছি জোর বৃষ্টি এল নাকি
ভুলবশত চুপ না থেকে তোমাকে চিঠি লিখে ফেলছি বারবার
উত্তর থেকে পূর্বে ঠিক ছিটকে ছিটকে যাচ্ছি কেবল

Is that you, dear? Or,
Is that my own caring fear
I could not know, of course
What is the original source
Why every mundane night
Every rehearsed move, miserable plight
Rendered statelessness into me
So lovingly built, so deadly poised

বেশ ক’দিন হল, লিখিনি কিছুই।
ব্যাজার মুখে নিয়ম করে বাজার গেছি
না-ইন্সাফি অফিসও করিনি কামাই।
আশিরনখ ঘেমে-নেয়ে ঠিকই ফিরছি বাড়ি
আর
একটা লেখাকে খুব খুঁজছি
ক’দিন ধরেই

I can only remember a forgotten story
I can only listen to the hymns of broken silence
Of a night, THAT bright night
Where you’re alive aplenty, like my missed heartbeats

ঝোপঝাড় সরিয়ে সরিয়ে আঁতিপাঁতি করে শব্দ চিনছি
মেঘ সরিয়ে সরিয়ে দেখছি কোথায় আছে রাত
রেগে যাচ্ছি খুব অক্ষমতার জ্বালায়
খাতার পাতায় খুব জোরে টিপে ভেঙ্গে দিচ্ছি পেনের নিব
একটা একটা করে জ্বালাচ্ছি মোমবাতি
আর সেঁকে নিচ্ছি হাতের দরজা
দুয়ার হাট করে খুলে পালাচ্ছি তেপান্তরের দিকে
বুকের ভেতরে জমে উঠছে মৈথিলী অপভ্রংশ
বারবার ঠান্ডা অ্যাসিড জলে ধুয়ে নিচ্ছি চোখমুখ
সত্যি সত্যি খুঁজতে চাইছি
একটা প্যারাডাইম শিফট

That’s why
I still wake up, unused, undyed

তাই
আয়নায় তোমার পিছনে দাঁড়িয়ে
খুব জড়িয়ে-জাপ্টে আদর করতে-করতে
তোমার সব শব্দগুলো শুষে গিলে নিচ্ছি প্রচন্ড নেশায়

I pick up my pen and bloating paper
To try n figure out
How to write silence of those queer searing eyes
How to draw words of faith
To present the future of the past

এইসবের মধ্যে দিয়ে একটা-একটা ভালোবাসার লেখা
আমার ও আমার কাগজকলমের মাঝখান দিয়ে
অর্থাৎ আমার ও তোমার মাঝখান দিয়ে
চুপিসারে গলে পালিয়ে যাচ্ছে…



অনির্বাণ চন্দ

জন্ম মামাবাড়িতে, আরামবাগ। বড় হয়ে ওঠা কোলকাতায়, পড়াশোনাও। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার ২০০৭ সালে। বর্তমানে ইন্ডিয়ান অয়েলে কর্মরত। শখের লেখক, আদতে পাঠক। নেশা, বলাই বাহুল্য, বই পড়া। পড়ার বিষয়ের কোনো বাছবিচার নেই। সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের প্রায়-অন্ধ ভক্ত। ২০১৬ সালে প্রথম ছাপার অক্ষরে লেখার প্রকাশ, বিভা প্রকাশনী থেকে এবং লিটল ম্যাগাজিন 'রংছুট'-এ। 'অ-লেখক' হবার স্বপ্ন দেখার বদ অভ্যাস ত্যাগ করতে এখনো অপারগ।

0 Comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।