কাকতাড়ুয়াকে

সূরজ দাশ on

আজ এখানে সূর্যোদয় কিভাবে হবে জানা যায়নি তবু
অনিবার্য ছিল হয়তো ধোঁয়া ছিন্ন ভোরের প্রস্থান
একটু পরে গড়িয়ে যাবে আবহাওয়া দুপুরের শ্মশানে
মানুষগুলো মিলিত হবে বৈপরীত্য আলিঙ্গণে তবু

শুনেছি তারা ফ্যাকাশে হয়ে যাচ্ছে সাদা কান্নার মতন
বক্রপথ, আদিম ঘাম অভিযুক্ত হয়ে যাচ্ছে সব
প্রাত্যহিক জীর্ণ কিছু ডায়েরী শ্বেত খুজে নেয় পতন
স্বপ্নকণা নিভে যাচ্ছে বন্ধু খুব, ঘুরিয়ে দাও নব

শীতকাতুরে পরিযায়ীরা কোথায় যায়, কোথায় বাসা বাঁধে
কোন বন্ধু আবার তারা পটিয়ে নিতে পারে, পরের কাঁধে
চড়ে কে ঘোরে আসমুদ্র, নীল জোছনা দেখে কে ভয় পায়
ফসল ক্ষেত ফেলে ক্লান্ত অ্যান্টিনার তারে কেন লাফায়

নিরীহ পাখি, তুমি কি জানো সর্ষেক্ষেত, কেন কাকতাড়ুয়া
আজ তোমার পাশে আনত থেকেছে, সেকি সত্যিই ভাঁড়ুয়া ?


ফেসবুক অ্যাকাউন্ট দিয়ে মন্তব্য করুন


সূরজ দাশ

জন্মতারিখ : ২০-২-১৯৭৫। জন্মস্থান : রঙ্গিয়া, আসাম। পিতৃভূমি : বিনশিরা, হিলি, দক্ষিণ দিনাজপুর, পশ্চিমবঙ্গ। কর্মস্থান : বালুরঘাট, দক্ষিণ দিনাজপুর, পশ্চিমবঙ্গ। পেশা : সমাজকর্মী। শিশুর অধিকার সুনিশ্চিত করার পক্ষে নিরন্তর খেটে চলা। লেখালেখি - শূন্য দশক থেকে । কবিতা লেখা ফার্স্ট প্রায়োরিটি।প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ – ১। আত্রেয়ীর ঠোঁট ( ২০০৬), মধ্যবর্তী প্রকাশনী, বালুরঘাট ২। জিরো ওয়াটের হা-হুতাশ ( ২০১২ ), কবিতা ক্যাম্পাস, হাওড়া ৩। অশ্বক্ষুরাকৃতি বেহালা ( ২০১৭ ), সারঙ্গ প্রকাশনী, হাওড়াপত্রপত্রিকা - “উন্মাদের পাঠক্রম" নামে একটা চনমনে কবিতার কাগজ সম্পাদনার মাধ্যমে শূন্য দশকে লেখালেখি শুরু ! পত্রিকাটি তিওড়, হিলি দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে প্রকাশিত হতো ! প্রায় বছর দুয়েক কাগজটি বেরুনোর পর বন্ধ হয়ে যায় । পরবর্তীতে "মধ্যবর্তী" ( বালুরঘাট, দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে প্রকাশিত )সাহিত্য পত্রিকায় লেখালেখি এবং সহ সম্পাদক হিসেবে কাজ করেন সাত - আট বছর ! এরপর "উত্তর দক্ষিণ" ( বালুরঘাট, দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে প্রকাশিত ) সাহিত্য সমাজ ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক লিটল ম্যাগাজিনের ভাষাকর্মী হিসেবে বহু বছর ধরে কাজ করে চলেছেন । এখনো এই পত্রিকার সঙ্গে যুক্ত ! বর্তমানে উত্তর দক্ষিণের প্রকাশক! "উত্তরভাষা" ( বালুরঘাট, দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে প্রকাশিত ) পত্রিকার সঙ্গেও কয়েক বছর সম্পাদকমন্ডলীতে ছিলেন । বর্তমানে উত্তরের রোববার, বর্ণালী মঞ্চ, বালুরঘাট, দক্ষিণ দিনাজপুর এর মাসিক সাহিত্য পাঠের আসরের একজন কর্মী ।সাহিত্য সম্মাননা প্রাপ্তি :- ১। বিনয় পদক সম্মান – ২০১৫, দুর্গাপুর, বর্ধমান ২। বর্ণালী স্মৃতি পুরষ্কার – ২০১৬, উত্তরের রোববার, বালুরঘাট, দক্ষিণ দিনাজপুর ৩। কৃষ্টিদর্পণ পুরষ্কার – ২০১৭, বাউল, দক্ষিণ দিনাজপুর ৪। প্রতিস্বর স্মারক সম্মান – ২০১৭, বালুরঘাট, দক্ষিণ দিনাজপুর ৫। সৃজন সাহিত্য সম্মান – ২০১৮, রোববারের সাহিত্য আড্ডা, ইসলামপুর, উত্তর দিনাজপুর ৬। শচীন্দ্রনাথ অ্যাকাডেমি সম্মাননা – ২০১৮, ডিকুল, কুশমণ্ডি, দক্ষিণ দিনাজপুরসমাজসেবামূলক সম্মাননা প্রাপ্তি :- সেরা আইনি পার্শ্বসেবক, পশ্চিমবঙ্গ ২০১৭, জাতীয় আইনি পরিষেবা কেন্দ্র, সুপ্রীম কোর্ট, নতুন দিল্লি ।

0 Comments

মন্তব্য করুন

Avatar placeholder

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।